প্যানডেমিকের প্রথম ধাক্কা, ডাল্টনের বন্ড ও অন্ধত্বের সারামাগো

কোন ধরণের ভারি কথা বা চিন্তা মাথায় আসছেনা। গতকাল রাত জেগে বন্ড এক্টর টিমোথি ডাল্টনকে নিয়ে পড়লাম। যৌবনে এই লোক অসম্ভব সুদর্শন ছিলেন। শন কনোরি বন্ড হিসেবে অবসর নেবার পর তাকেই প্রথম এপ্রোচ করেছিল প্রডিউসাররা। ডাল্টন বলেছিলেন, ‘কোন বিখ্যাত রোলে রিপ্লেসমেন্ট ভাল আইডিয়া, কিন্তু পূর্বসূরি যদি হয় কনোরির মত কেউ,

খোঁয়ারির মত

ইলিয়াসের খোঁয়ারি গল্পের বাড়িটার মত এক ভঙ্গুর পুরাতন বাড়ির সামনে দাঁড়ালাম। দোতলা বাড়ি, নিচতলায় সাইকেলের দোকান, উপরের তলার দেয়ালে ফুলের নকশায় কালচে শ্যাওলা। টানাবারান্দাটি এক সময় খোলা ছিল বোঝা চলে, ঘিঞ্জি লোহার শিক টানা হয়েছে পরে। ভিতরের দরজা জানালার ওপাশে অন্ধকার, কেউ থাকে অনুমান হয়, কীভাবে থাকে তা বোঝা কঠিন।

স্মৃতির দুর্ভিক্ষ

ভিডিও ক্লাবের দিনগুলো ঝাপসা ছবির মত একেক বিকেলে মগজের পর্দায় দুলে ওঠে। নব্বইয়ের দশক। বইয়ের মত শেলফে সাজানো থরে থরে ভিসিআরের ক্যাসেট। সিনেমা পাগল তরুণদের মাঝে তৈরি হওয়া একটা কমিউনিটি। ভাগাভাগি করে নতুন ভিডিও ক্যাসেট এ ঘর ও ঘর করত। সন্ধ্যা বা দুপুরের অবসরে ডেস্কে দাঁড়িয়ে আড্ডা। বাইরে বিখ্যাত কোন

error: লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন