এনামুল রেজা

জন স্নো – হিরো বনাম লিডার

If I Fall, Don’t Bring Me Back.

Give Me Honorable Enemies Rather Than Ambitious Ones, And I’ll Sleep More Easily By Night.

Jon Snow

জন স্নো কি একজন গ্রেট লিডার?

মার্কিন লেখক জর্জ আর আর মার্টিন তার আ সং অব আইস অ্যাান্ড ফায়ার নামক ফ্যান্টাসি উপন্যাস সিরিজের পাঁচ খন্ড পর্যন্ত লিখেছেন। এইচবিও চ্যানেলে এই কাহিনী থেকে বানানো ড্রামা সিরিজের শেষ টানা হয়েছে। যদিও প্রথম পাঁচ সিজন বইয়ের অনুসারিই বলা যায়।

এই প্রথম পাঁচ সিজনে জন স্নোর লিডারশিপ শিক্ষা নিয়ে ভাবছিলাম কিছু ঘটনার মাঝখান দিয়ে।

যেমন, জনের প্রথম রেইডিং এর অভিজ্ঞতায় ক্রাস্টার্স কিপের ঘটনাটা।

ক্রাস্টার দ্যা ওয়ালের উত্তরপাশে থাকে। যেইখানে শীত বেশী, বরফের রাজ্য, জীবন ধারণ কঠিন। ক্রাস্টার প্রকৃতির সঙ্গে সমঝোতা করে থাকে। এই যুক্তিটা দিয়েই সে মূলত সে নিজের আদিম লাইফস্টাইলকে জাস্টিফাইড ভাবে।

ক্রাস্টারের অসংখ্য স্ত্রী। এবং সেসব স্ত্রীদের গর্ভে জন্ম নেওয়া কন্যারাদেরও ক্রাস্টার নিজের স্ত্রী হতে বাধ্য করে। এভাবে একটা চক্র চলে আসছে তার জীবনে যুগ যুগ ধরে। কিন্তু তার কোন পুত্রসন্তান নাই। আসলেই কি নাই? নাকি আছে আর সেসব পুত্রসন্তান নিয়ে ক্রাস্টার অন্য কিছু করে?

এটা অনুসন্ধানে জন স্নো এক রাতে ক্রাস্টারকে গোপনে অনুসরণ করতে থাকে। ঐ লোকের কোলে তার কোন এক কন্যা কাম স্ত্রীর সদ্য জন্ম নেওয়া পুত্র। জন ক্রাস্টারের পুত্রসন্তানদের রহস্য কিছুটা ভেদ করে ফেলে। অতঃপর ক্রাস্টারের হাতে ধরা খায়।

তার আস্তানায় থাকার নিয়ম অনুযায়ী নাইটস ওয়াচের লিডার জিওর মর্মন্টের কাছে জনকে হস্তান্তর করে ক্রাস্টার এবং জনসহ নাইটস ওয়াচের সবাইকে তার আস্তানা থেকে বেরিয়ে যেতে বলে। জনের উপর প্রচন্ড রেগে গেলেও তার কলার ধরে মর্মন্ট জনকে একটা প্রশ্ন জিজ্ঞেস করে, ‘তুমি কি লিড দিতে চাও তোমার দলরে কোনদিন?’

জন বোকার মত মাথা নাড়ে। মানে লিডারশিপ নেয়ার ইচ্ছা তার মনে আছে এইটা মর্মন্টকে সে জানায়। তখন মর্মন্ট বা বুড়ো ভালুক বলে লোকে যাকে সমীহ করত, সে বলে যে, ‘লীডার হইতে যদি চাও সবার আগে শেখো কেমনে ফলো করতে হয়।’

এইখানে নোটেবল বিষয় দুইটা।

এক, জনকে সব সময় মর্মন্ট নিষেধ করে কৌতুহল না দেখাতে বা ক্রাস্টারের কিপে থাকার অবস্থায় ক্রাস্টারের দেয়া শর্ত মেনে চলতে। যেইটা জন শোনেনা। কেননা জন কৌতুহলী।

কিন্তু জনের কৌতুহলের জন্য মর্মন্ট তাকে দোষ দেয়না। জিওর মর্মন্ট তার শিষ্যকে এজন্য শাসন করে যে কৌতুহল নিবৃত্ত করতে গিয়ে ক্রাস্টারের হাতে সে ধরা পড়েছে।

জনকে শাসন করার পরের মুহূর্তেই জানায় যে, ক্রাস্টারের গোপন যে কোন কাজকর্মই তার জ্ঞাত। কিন্তু এইটা ক্রাস্টারকে সে বুঝতে দেয়না। বা সরাসরি শত্রুতাও পোষণ করেনা। কেননা ক্রাস্টার খারাপ লোক হইলেও ওয়াইল্ড নর্থের বিরূপ পরিবেশে রেইডিং পার্টি চালাইতে হলে তার সঙ্গে সমঝোতা করে চলতে হবে জিওরকে। নেতা হিসেবে এইটা তার কৌশল।

এইখানে ছিল নীতিবাদি ও সৎ জনের প্রথম রাজনৈতিক শিক্ষা। শত্রুকে স্টাডি করতে হবে, তার গোপনীয়তা আনভেইল করতে হবে, কিন্তু তা শত্রুকে বুঝতে দেয়া যাবেনা। এ ছাড়া বৃহৎ বা দূরদর্শী সুবিধা অর্জনে বর্তমানে কৌশলগত সমঝোতা বা শত্রুর থেকে সুবিধা নেয়ার চেষ্টা বুদ্ধিমান নেতার কাজ।

যেই শিক্ষা কাজে লাগিয়ে জন স্নো ওয়াইল্ডলিং আর নাইটস ওয়াচের শতবর্ষী শত্রুতার মধ্যে শক্তিশালি সংযোগ তৈরির পদক্ষেপ নেয়।

যদিও তার নেয়া পদক্ষেপ ব্যক্তি জনের জন্য প্রাণসংহারী হয়ে দাঁড়িয়েছিল। নাইটস ওয়াচে আগে থেকেই প্রতিপক্ষ ছিল তার। এরাই একটা বিদ্রোহের আয়োজন করে। যাদের জাস্টিফিকেশন ছিল এই যে, জন স্নো নাইটস ওয়াচের চিরশত্রু ওয়াইল্ডলিংদের দ্যা ওয়ালের এ পাশে আসার অনুমতি দিচ্ছে, যা হাজার বছর ধরে চলে আসা নাইটস ওয়াচের একটা উদ্দেশ্যকে ডিফাই করে।

কিন্তু এই বিদ্রোহের ব্যাপারে জন কিছু জানতে তো পারেই না। পাশাপাশি অনুমান করতেও ব্যার্থ হয়। কেননা সে শত্রুর থেকেও বিশ্বস্ততা আশা করে। এ ঘটনা থেকে বোঝা যায় যে সে সিচুয়েশনাল গ্রেট লিডার। যা সিরিজে পরবর্তিতে আরও অনেকবার দেখা গেছে।

এ কারণেই জন স্নো মূলত একজন হিরো। যাদের অবদান ও ত্যাগ কোন জনগোষ্ঠির জীবনে প্রভাব রাখতে সক্ষম হয়। কিন্তু ট্র্যাজেডি ছাড়া হিরোর লাইফ আনসাং থেকে যায় বা শুধুমাত্র পতনের দিকেই টার্ন নিতে পারে।


মন্তব্য জানাতে আপনার সোশাল মিডিয়া একাউন্ট অথবা ইমেল ব্যবহার করুন

error: লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
%d bloggers like this: